অণু কাকে বলে?

দুই বা দুইয়ের অধিক সংখ্যক পরমাণু পরস্পরের সাথে রাসায়নিক বন্ধনের মাধ্যমে যুক্ত থাকলে তাকে অণু বলে

যেমন – দুটি অক্সিজেন পরমাণু (O) পরস্পরের সাথে যুক্ত হয়ে অক্সিজেন অণু (O‌‌2) গঠিত হয়।


মৌলিক অণু

মৌলের অণু

যদি একই মৌলের একাধিক পরমাণু যুক্ত হয়ে অণু গঠন করে তাহলে তাকে মৌলিক বা মৌল অণু বলে।

যেমন- অক্সিজেন (O2) অর্থাৎ, দুটি অক্সিজেন পরমাণুর পরস্পরের সঙ্গে যুক্ত হয়ে অক্সিজেন অণু গঠন হয়েছে।

যৌগিক অণু

যৌগের অণু

ভিন্ন ভিন্ন মৌলের পরমাণু যুক্ত হয়ে যে অণু গঠন করে তা যৌগিক বা যৌগ অণু বলে।

যেমন- কার্বনডাইঅক্সাইড (CO2) এখানে একটি কার্বন পরমাণুর সঙ্গে দুটি অক্সিজেন পরমাণুর যুক্ত হওয়ার ফলে কার্বনডাইঅক্সাইড অণুর সৃষ্টি হয়েছে।


অণুর বৈশিষ্ট্য

  • অণুকে বিশ্লেষণ করলে একই বা ভিন্ন প্রকারের পরমাণু পাওয়া যায়।
  • অণু সরাসরি রাসায়নিক বিক্রিযায় অংশগ্রহণ করে না।
  • অণু মৌলিক বা যৌগিক পদার্থের বৈশিষ্ট্য রক্ষাকারী ক্ষুদ্রতম কণা।
  • অণুর স্বাধীন সত্তা আছে।
  • অণু স্থায়ী হয়ে থাকে।

কীভাবে পরমাণু অণুতে পরিণত হয়?

পরমাণুর মধ্যে ইলেকট্রন ভাগাভাগি বা বিনিময়ের ফলস্বরূপ, এই বন্ধনগুলি তৈরি হয়। এটি শুধুমাত্র ইলেকট্রন যা সর্বদা বাইরের কক্ষের বন্ধনে সক্রিয় থাকে।

পরমাণুগুলি একত্রিত হয়ে অণু তৈরি করে, রাসায়নিক বন্ধনগুলি তাদের একত্রে আবদ্ধ করে।

লবণ কি একটি অণু?

একটি অণু হিসাবে লবণ (NaCl) কে বিবেচনা করা হয় না।

একটি রাসায়নিক উপাদান বা যৌগের মধ্যে, একটি অণু হল ক্ষুদ্রতম কণা যেটিতে সেই উপাদান বা যৌগের রাসায়নিক বৈশিষ্ট্য রয়েছে। রাসায়নিক বন্ধনে আবদ্ধ পরমাণুগুলি অণু দ্বারা গঠিত।

অণুগুলি আণবিক বন্ধনের বিষয়। লবণ NaCl) একটি যৌগ কারণ এটি একাধিক ধরণের উপাদান (সোডিয়াম এবং ক্লোরিন) দিয়ে তৈরি।

এটি একটি আয়নিক বন্ধন যা NaCl কে একত্রে ধারণ করে। আমরা বলতে পারি সোডিয়াম ক্লোরাইড অণু নয়। এটি একটি আয়নিক যৌগ।

শেয়ার করুন

Leave a Comment

Your email address will not be published.