আজকাল সব মোবাইল হ্যান্ডসেটে নন-রিমোভেবল ব্যাটারি ব্যবহার করা হয় কেন?

মোবাইল প্রযুক্তির প্রথম দিনগুলিতে, বেশিরভাগ মোবাইল ফোনে রিমুভ করার ব্যাটারি ছিল। যার ফলে খুব সহজেই যে কোনো ব্যবহারকারী সহজেই মোবাইলের ব্যাটারী চেঞ্জ করতে পারতো।

কিন্তু বর্তমান সময়ে, প্রবণতা বিপরীত হয়েছে বেশিরভাগ স্মার্টফোনে non removable ব্যাটারি রয়েছে। আপনি যদি সবচেয়ে বড় ব্র্যান্ডের সব থেকে দামি ফোন অথবা কম দামি সব ক্ষেত্রেই দেখতে পাবেন নন রিমুভাল ব্যাটারী লাগানো হয়েছে।

উদাহরণস্বরূপ, স্যামসাংয়ের, আপেল এবংসস্তাতে পাওয়ায় চীনের কোম্পানি গুলিও স্মার্টফোনে ব্যাটারি সিল সিল করেছে।

যদিও প্রথমে আপেলই iPhone এর ব্যাটারী নন-রিমোভেবল নিয়ে আসে। এরপর থেকে সমস্ত কোম্পানি স্যামসুং এর মতোই নন-রিমোভেবল ব্যাটারী যুক্ত করেছে স্মার্টফোনের মধ্যে।

স্মার্টফোন নির্মাতারা কেন নন-রিমোভেবল ব্যাটারি ব্যবহার করছেন?

non removable battery এর ব্যবহার করার অনেক সুবিধা আছে যা হলো :

১. মোবাইল কে অনেক সুন্দর ডিজাইন ও মজবুত করে বানানো সম্ভব

ধরুন আপনার মোবাইল কে যদি মোবাইলের ব্যাটারী যদি খোলা যায় তাহলে পেছনের ঢাকনা এমন রাখতে হবে যাতে বার বার খোলা যায়।

যার ফলে ওই ঢাকনার জায়গা গুলিতে খুব বেশি প্রিমিয়াম ডিজাইন দেওয়া সম্ভব হয়না।

এছাড়াও ফোনকে মজবুত করা ঠিকমতো সম্ভব হয়না যদি পেছনের ঢাকনা ব্যবহার করা হয় , যা বার বার খোলা এবং লাগানো হতে পারে।

এর জন্য ব্যাক কভার কে নমনীয় প্লাষ্টিক দিয়ে বানানো হতো, যাতে বার বার খোলা ও লাগানো হয়। এরজন্য অনেক কাস্টমার ভাবতেই পারেন সস্তার প্লাষ্টিক ব্যবহার করা হচ্ছে।

তাই বর্তমানে ধাতুর কিংবা সিরামিক এর এবং অন্য প্রিমিয়াম লাগার মতো লুক দেওয়ার জন্য ব্যবহার করা হয়।

মোবাইল কে মেটাল বডির সঙ্গে একদম সিল করে দিলে খুবই মজবুত থাকে।

২. কম জায়গা লাগে

মোবাইলের ব্যাটারী নন রিমোভাবেল করলে জায়গা অনেক কম লাগে।

মোবাইল ডিজাইনের সব থেকে বড়ো সমস্যা হলো কম জায়গা। ওই টুকু জায়গার মধ্যে সমস্ত কম্পোনেন্ট রাখা অনেক টা চ্যালেঞ্জ বলতে পারেন।

বর্তমান দিনে একটা স্মার্টফোনের বিভিন্ন রকমের ফিচারস থাকে , সেই সঙ্গে ব্যাটারির কাপাসিটিও বেশি থাকা দরকার।

তাই ব্যাটারী কে নন রিমুভাল করলে মোবাইল কোম্পানি নিজেদের মতো জায়গা করে নেয়।

কিন্তু পরিবর্তে যদি রিমুভাল ব্যাটারী লাগান তাহলে, কাস্টমার যাতে সহজে খুলতে ও লাগাতে পারে এর জন্য সঠিক জায়গায় সঠিক ভাবে লাগাতে হবে। যার ফলে বেশি জায়গা লেগে যায়।

৩. নকল ব্যাটারী এর ঝুঁকি কমে যায়

অনেকসময় দেখা যায় যে মোবাইল আসল ব্যাটারীর পরিবর্তে নকল ব্যাটারী দোকানদার দিয়ে ফেলতে পারে। যেহেতু সিল করা থাকে তাই তা সম্ভব হয়ে ওঠেনা সহজে।

৪. মোবাইল কোম্পানির লাভ

মোবাইল কোম্পানি অবশই চাইবে আপনি বার বার মোবাইল কিনুন। তাহলেই তো লাভ হবে কোম্পানি গুলির।

ধরুন আপনার মোবাইলের ব্যাটারী বেশি ব্যাকআপ দেয়না। তাহলে ভাবতেই পারেন একটা নতুন মোবাইল কিনে ফেলতে অথবা ওই মোবাইলের ব্যাটারী চেঞ্জ করতে চাইবেন , এর জন্য কাস্টমার সার্ভিস সেন্টারে যাওয়া পছন্দ করবে। যার ফলে কোম্পানির ইনকাম হবে।

যদি রিমুভ করার মতো ব্যাটারী হতো তাহলে কাস্টমার যেকোনো লোকাল কোম্পানির তৈরী ব্যাটারী নিজে কিনে লাগিয়ে নিতো। অর্থাৎ ফোন কেনা হতো না আবার সার্ভিস সেন্টারে যেত না।

শেয়ার করুন

Leave a Comment

Your email address will not be published.