নতুন এসি কেনার আগে কোন কোন বিষয় গুলি খেয়াল রাখা উচিত?

নতুন AC কেনার আগে আপনাকে যে যে জিনিস গুলি মাথায় রাখতে হবে তা নিচে আলোচনা করা হলো।

১. ঠান্ডা করার ক্ষমতা

ঘরের আকার অনুযায়ী AC কেনা উচিত, ছোট ঘরের ক্ষেত্রে AC এর cooling capacity কম হলেও চলবে।

AC এর ঠান্ডা করার ক্ষমতা অনুযায়ী Cooling capacity বিভিন্ন Ton এর হয়ে থাকে।

  • সাধারণত ১ টন এর AC ১০০ বর্গফুট ক্ষেত্রফল ঘরের জন্য ব্যবহার করলে সহজেই ঘরটি ঠান্ডা করে ফেলবে।
  • ১৩০ বর্গফুট ঘরের জন্য ১.৫ টন এর এসি ব্যবহার করা যেতে পারে।

আবার আপনার রুম যদি গ্রাউন্ড ফ্লোর এ থাকে অথবা গাছপালা দিয়ে ঘেরা থাকে তাহলে ১৩০ বর্গফুট এর রুমে ১ টনের এসি লাগলেও চলবে।

cooling capacity সাধারণত ০.৭৫ টন , ১ টন , ১.৫ টন এরকম হয়ে থাকে।

যত বেশি ঠান্ডা করার ক্ষমতা হবে তত বেশি তাড়াতাড়ি রুম ঠান্ডা হবে এবং বড়ো ঘরের ক্ষেত্রে বেশি cooling capacity এর AC লাগানো হয় এবং ছোট ঘরের জন্য কম ton এর এসি লাগাল কাজ হয়ে যায়।

২. স্প্লিট এসি vs উইন্ডো এসি

স্প্লিট এসি vs উইন্ডো এসি

বাড়িতে সাধারণত split অথবা window ac লাগানো হয়ে থাকে, তাই আপনি AC কেনার আগে অবশই ভেবে নেবেন কোন প্রকারের AC আপনার জন্য ভালো হবে।

  • স্প্লিট এসি বাড়ির দেওয়ালে টাঙানো থাকে , কিছুটা দেখতেও সুন্দর লাগে। কিন্তু বাস্তব অভিজ্ঞতা থেকে বলছি, স্প্লিট এসি বেশি খারাপ হয় উইন্ডো এসি এর তুলনায়।
  • স্প্লিট এসি লাগানোর জন্য পাইপ এবং ঘরের বাইরে একই ইউনিট বসানো হয়। তাই খরচ কিছুটা বেশি হতে পারে।
  • Window AC তে যা জানালার সাথে লাগানো থাকে অথবা আলাদা করে দেওয়াল কেটে লাগানো হয়ে থাকে।
  • উইন্ডো এসি ইনস্টল করার জন্য যদি দেওয়াল কাটতে চান তাহলে খরচ বেশি হতে পারে। এছাড়াও জানালার ওপরে বসিয়ে দিতে পারেন। এক্ষেত্রে সম্পূর্ণভাবে জানালা ব্যবহার করা যায়না। কিছুটা অংশ এসি নিয়ে থাকে।

আমি সাধারণত উইন্ডো AC সাজেস্ট করি, কিন্তু আপনি যদি সুন্দর ভাবে ঘরকে সাজাতে চান তাহলে স্প্লিট AC কেনাই ভালো।

৩. coil

AC এর মধ্যে কপার এবং অ্যালুমিনিয়াম এর কয়েল ব্যবহার করা হয়।

কপার কয়েল যুক্ত এসি গুলির দাম বেশি হয় অ্যালুমিনিয়াম যুক্ত কয়েল AC এর তুলনায়। কিন্তু চেষ্টা করবেন কপার কয়েল যুক্ত AC কেনার। কারণ, কপার কয়েল repair করা যায় অ্যালুমিনিয়াম কয়েল রিপেয়ার করা যায়না বেশিরভাগ ক্ষেত্রে।

তাই AC কেনার সময় অবশ্যই কপার কয়েল যুক্ত AC কেনা উচিত। নাহলে পরবর্তীকালে অ্যালুমিনিয়াম কয়েল পরিবর্তন করতে হবে এবং অধিক খরচ হতে পারে।

এছাড়াও কপার কয়েল এর তাপ পরিবহন ক্ষমতা অধিক অ্যালুমিনিয়াম কয়েল এর তুলনায়। তাই ঠান্ডা করার দিক দিয়ে কপার কয়েল ভালো এবং মজবুত।

৪. বিদ্যুৎ সাশ্রয়

  • যদি আপনি বেশি সময় AC ব্যবহার না করে থাকেন তাহলে সাধারণ AC কিনতে পারেন।
  • যদি অধিক সময় AC ব্যবহার করতে চান তাহলে ইনভার্টার AC কিনতে পারেন। যার ফলে বিদ্যুতের খরচ সাশ্রয় হবে।

যদিও ইনভার্টার AC এর দাম অনেক বেশি হয় নন ইনভার্টার AC এর তুলনায়। শুধু তাই নয় সাধাণত ইনভার্টার AC এর রিপেয়ার করার খরচ অনেক বেশি হয়ে থাকে নন ইনভার্টার এসি এর তুলনায়।

৫. ব্র্যান্ড

যে ব্র্যান্ড ভালো পরিষেবা দিতে পারবে সেই ব্র্যান্ড এর AC কেনা উচিত। ইলেকট্রনিক্স এবং মেকানিকাল পার্টস দিয়ে গঠিত AC কতদিন চলবে এর এটি বলা সম্ভব নয়। কিন্তু যে ব্র্যান্ড দ্রুত পরিষেবা দেবে ওই ব্র্যান্ডের AC কিনা উচিত।

কারণ পরবর্তীকালে ওয়ারেন্টি থাকাকালীন খারাপ হলে দ্রুত ভালো পরিষেবা দরকার।

খুব নাম করা ব্র্যান্ডের AC অনেকদিন ধরে চলে যায়, যদি ভালো কপার কয়েল লাগানো থাকে। তাই কোম্পানির নামের থেকে কোয়ালিটির দিকে নজর দেওয়া উচিত। (যার মধ্যে copper coil যুক্ত AC কেনা উচিত , অ্যালুমিনিয়াম যুক্ত AC এড়িয়ে চলুন)


শেয়ার করুন

Leave a Comment

Your email address will not be published.