ভাষা কাকে বলে? ভাষার লক্ষণ কি কি?

ভাষা , প্রচলিত একটি পদ্ধতি উচ্চারিত, ম্যানুয়াল যার দ্বারা (স্বাক্ষরিত), অথবা লিখিত প্রতীক মানুষের মানুষ, একটি সদস্য হিসেবে সামাজিক দলের তার এবং অংশগ্রহণকারীদের সংস্কৃতি, নিজেদের প্রকাশ। ভাষার ফাংশনগুলির মধ্যে রয়েছে যোগাযোগ , পরিচয় প্রকাশ , খেলা , কল্পনাপ্রসূত অভিব্যক্তি এবং মানসিক প্রকাশ।


ভাষার কাকে বলে?

যে ধ্বনি মানুষের বাক যন্ত্রের সাহায্যে উচ্চারিত হয় এবং যার মাধ্যমে মনের ভাব প্রকাশ করা হয় তাকে ভাষা বলে।

ভাষা হল প্রতীক, শব্দ এবং/অথবা অঙ্গভঙ্গির একটি সিস্টেম যা অর্থ যোগাযোগ করতে ব্যবহৃত হয়।

একটা কথা মনে রাখতে হবে, যেকোনো ধ্বনি হলেই ভাষা হয়না। যেমন – কেউ যদি মুখ দিয়ে সিটি বাজায় এবং ধ্বনি উৎপন্ন করে । এটির কোনরকমের অর্থ নেই। তাই এটিকে ভাষা বলা যায়না।

ভাষার অনেক সংজ্ঞা প্রস্তাব করা হয়েছে। আমেরিকান ভাষাবিদবার্নার্ড ব্লচ এবং জর্জ এল. ট্র্যাগার নিম্নলিখিত সংজ্ঞা প্রণয়ন করেছেন: “একটি ভাষা হল স্বেচ্ছাচারী কণ্ঠস্বর প্রতীকগুলির একটি সিস্টেম যার মাধ্যমে একটি সামাজিক গোষ্ঠী সহযোগিতা করে।”

ভাষার যেকোনো সংক্ষিপ্ত সংজ্ঞা অনেকগুলি অনুমান তৈরি করে এবং অনেকগুলি প্রশ্নের জন্ম দেয়। প্রথমটি, উদাহরণস্বরূপ, “চিন্তার” উপর অত্যধিক ওজন রাখে এবং দ্বিতীয়টি একটি বিশেষায়িত, যদিও বৈধ উপায়ে “স্বেচ্ছাচারী” ব্যবহার করে।

হেনরি সুইট, একজন ইংরেজ ফোনেটিশিয়ান এবং ভাষা পণ্ডিত, বলেছিলেন: “ভাষা হল শব্দের সাথে মিলিত বাক-শব্দের মাধ্যমে ধারণার প্রকাশ। শব্দগুলি বাক্যে একত্রিত হয়, এই সংমিশ্রণটি ধারণাগুলির চিন্তার উত্তর দেয়।”


ভাষার লক্ষণ কি কি?

  1. আগেই আলোচনা করেছি যে, কোন ধ্বনি বা শব্দ উৎপন্ন করলেই টা ভাষা হবে এরকম কোনো মানে নেই। যা বোধগম্য ধ্বনি, তা হল ভাষা ।
  2. যে ধ্বনি বা শব্দে অর্থ থাকে ওই ধ্বনিই হলো ভাষা ।
  3. ভাষার মাধ্যমে পরস্পরের মধ্যে ভাবের আদান-প্রদান করে ।
  4. বক্তব্যের অন্তরঙ্গ রূপ প্রকাশ করে ।
  5. ভাষা মানুষের স্বভাব ও সংস্কৃতিকে প্রকাশ করে ।
শেয়ার করুন

Leave a Comment

Your email address will not be published.