মোল কি? – মোলের সংখ্যা – গুরুত্ব

  • রাসায়নিক পদার্থের পারমাণবিক ভর (পরমাণুর ক্ষেত্রে) অথবা আণবিক ভরকে (অণুর ক্ষেত্রে) গ্রাম এককে প্রকাশ করলে যে পরিমাণ পাওয়া যায় তাকে ঐ পদার্থের এক মোল বলে।
  • যে পরিমাণ পদার্থে 0.012 কিলােগ্রাম কার্বন -12 এ অবস্থিত পরমাণুর সমান সংখ্যক প্রাথমিক একক ( যেমন অণু , পরমাণু , ইলেকট্রন, আয়ন ইত্যাদি বা এগুলাের নির্দিষ্ট কোনাে গ্রুপ ) থাকে তাকে এক মােল বলে।
  • কার্বন-12 আইসোটোপের 12 গ্রাম ভরের কার্বন এ যতগুলো পরমাণু থাকে তার সমান সংখ্যক পরমাণু বা মৌলিক কণা কোনো পদার্থের যত গ্রামে থাকে তাকে ঐ পদার্থের এক মোল বলে।
  • পদার্থের একটি নির্দিষ্ট সংখ্যক (6.02214076 X1023) কণা ধারণকারী পরিমাণকে মোল বলে। যেমন– 1 মোল অণু বা 1 মোল পরমাণু বলতে বোঝায় অণুর সংখ্যা 6.02214076 X1023 বা পরমাণুর সংখ্যা 6.02214076 X1023.

একটি পদার্থে মোলের সংখ্যা

n = N / NA
n হল পদার্থের মোলের সংখ্যা।
N হল নমুনার মোট প্রাথমিক সত্তার সংখ্যা।
NA হল অ্যাভোগাড্রো ধ্রুবক। সংখ্যা 6.02214076 X1023 জনপ্রিয়ভাবে অ্যাভোগাড্রো ধ্রুবক হিসাবে পরিচিত।

মোলের গুরুত্ব

বর্তমানে আয়ন, ইলেকট্রন, প্রোটন ও অন্যান্য কণার ক্ষেত্রেও মোল ব্যবহার করা হয়।
যেকোনো রাসায়নিক বিক্রিয়ার প্রয়োজনীয় পদার্থ মোল এককে হিসাব ও ওজন করা হয়।

শেয়ার করুন

Leave a Comment

Your email address will not be published.