রাউটার কি? কিভাবে কাজ করে? রাউটারের প্রকার

রাউটার হল নেটওয়ার্কের জন্য ব্যবহৃত একটি সুইচিং ডিভাইস।

রাউটার নেটওয়ার্কের প্যাকেটগুলিকে তাদের ঠিকানা অনুযায়ী, অন্যকোনো নেটওয়ার্ক অথবা ডিভাইসের ঠিকানা অনুযায়ী নির্দিষ্ট পথে চালিত করতে সাহায্য করে ।

এছাড়াও, রাউটারকে ইন্টারনেট ব্যাবহার করার জন্য, নেটওয়ার্ক কে জোড়ার জন্য অথবা VPN (ভার্চুয়াল প্রাইভেট নেটওয়ার্ক) এর মাধ্যমে ব্রাঞ্চ অফিসকে main অফিসের সঙ্গে যুক্ত করার জন্যও রাউটারের ব্যাবহার করা হয়ে থাকে।

রাউটার হল একটি ডিভাইস যা দুই বা দুইএরঅধিক প্যাকেট-সুইচড নেটওয়ার্ক বা সাবনেটওয়ার্ককে সংযুক্ত করে। রাউটার এর প্রধান দুটি functions:

  1. একধিক ডিভাইস কে একই ইন্টারনেট কানেক্শনের সঙ্গে যুক্ত হতে অনুমতি প্রদান করে।
  2. এটির সঙ্গে যুক্ত সমস্ত নেত্বর্কগুলির মধ্যে ট্রাফিকে পরিচালনা করে। ডেটা প্যাকেটগুলির IP address অনুযায়ী ডিভাইস এবং নেটওয়ার্কে প্রেরণ করে।

রাউটার কি?

সহজভাবে, রাউটার হলো একটি নেটওয়ার্ক সুইচিং ডিভাইস। এটির সাহায্যে একই ইন্টারনেট কানেক্শনকে একাধিক ডিভাইস এ ব্যবহার করা সম্ভব। এবং রাউটার, নেটওয়ার্ক প্যাকেটগুলির IP address অনুযায়ী ডিভাইস অথবা নেটওয়ার্কে প্রেরিত করে।


বিভিন্ন ধরণের রাউটার রয়েছে, তবে বেশিরভাগ রাউটার LAN (লোকাল এরিয়া নেটওয়ার্ক) এবং WAN (ওয়াইড এরিয়া নেটওয়ার্ক) এর মধ্যে ডেটা পাস করে। একটি LAN হল একটি নির্দিষ্ট ভৌগলিক এলাকায় সীমাবদ্ধ সংযুক্ত ডিভাইসগুলির একটি গ্রুপ। একটি LAN-এর জন্য সাধারণত একটি একক রাউটারের প্রয়োজন হয়।

বিপরীতে, একটি WAN হল একটি বিশাল নেটওয়ার্ক যা একটি বিশাল ভৌগলিক এলাকায় বিস্তৃত। বৃহত্তর সংস্থা এবং কোম্পানিগুলি যেগুলি সারা দেশে একাধিক স্থানে কাজ করে, উদাহরণস্বরূপ, প্রতিটি অবস্থানের জন্য আলাদা ল্যানগুলির প্রয়োজন হবে, যা একটি WAN গঠনের জন্য অন্যান্য LANগুলির সাথে সংযুক্ত হবে৷ যেহেতু একটি WAN একটি বৃহৎ এলাকা জুড়ে বিতরণ করা হয়, এটি প্রায়শই একাধিক রাউটার এবং সুইচের প্রয়োজন হয়।

একটি নেটওয়ার্ক সুইচ একই নেটওয়ার্কের ডিভাইসের গ্রুপগুলির মধ্যে ডেটা প্যাকেট ফরোয়ার্ড করে, যেখানে একটি রাউটার বিভিন্ন নেটওয়ার্কের মধ্যে ডেটা ফরোয়ার্ড করে।

রাউটার কিভাবে কাজ করে?

নেটওয়ার্ক প্যাকেটকে নির্দিষ্ট ঠিকানা অনুযায়ী ডিভাইস অথবা নেটওয়ার্কে নেটওর্য়াক প্যাকেটগুলি পৌঁছে যাওয়ার জন্য পথপ্রদর্শক এর ভূমিকা পালন করে। নেটওয়ার্ক প্যাকেটগুলির মধ্যে বিভিন্ন ধরণের তথ্য (data) থাকে। যেমন: ফাইল, যোগাযোগ, এবং web interactions এর মতো সাধারণ ট্রান্সমিশন।

ডেটা প্যাকেটগুলিতে বেশ কয়েকটি স্তর বা বিভাগ থাকে, যার মধ্যে একটি সনাক্তকারী তথ্য যেমন প্রেরক, ডেটা টাইপ, আকার এবং সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ, গন্তব্য আইপি (ইন্টারনেট প্রোটোকল) ঠিকানা বহন করে। রাউটার এই স্তরটি পড়ে এবং ডেটাকে অগ্রাধিকার দেয় এবং প্রতিটি ট্রান্সমিশনের জন্য ব্যবহার করার জন্য সর্বোত্তম রুট বেছে নেয়।

রাউটারের প্রকার

১. ওয়্যার রাউটার (wire router)

ওয়্যার রাউটার এর ক্ষেত্রে ইন্টারনেট LAN ক্যাবলের মাধ্যমে সমস্ত ডিভাইস এর সঙ্গে রাউটার কে যুক্ত করা যায়।

২. ওয়্যারলেস রাউটার (Wireless router)

কোনোরকমের তারের প্রয়োজন নেই কোনো ডিভাইস কে যুক্ত করার জন্য। রাউটার থেকে Wi-Fi সিগন্যাল এর মাধ্যমে ইন্টারনেট শেয়ার করা সম্ভব Wi-Fi রাউটারের ক্ষেত্রে।

৩. কোর রাউটার (Core Router)

কোর রাউটার কে ব্যবহার করা হয় আলাদা আলাদা রাউটার কে যুক্ত করার জন্য। core router একই নেটওয়ার্কের মধ্যে সমস্ত রাউটার গুলির সঙ্গে যুক্ত করা হয়।

ধরুন, একটি জায়গায় অনেক রাউটার আছে এবং ওই রাউটার গুলিকে একসঙ্গে যুক্ত করার জন্য কোর রাউটার ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

৪. এজ রাউটার (Edge router)

এজ রাউটার কে নেটওয়ার্কের প্রান্তে ব্যবহার করা হয় ,এই রাউটার এর কাজ হলো নেটওয়ার্ক প্যাকেটকে আলাদা আলাদা নেটওয়ার্কে পাঠানো।

অর্থাৎ ডেটা আদান প্রদান করতে সাহায্য করে অন্য নেটওয়ার্কের সঙ্গে।

৫. ভার্চুয়াল রাউটার (virtual Router)

এটিকে VPN রাউটার ও বলা হয়ে থাকে। এটি কোনো একটি কম্পিউটারে সফটওয়্যার এর মাধ্যমে করা হয়ে থাকে।

ওই কম্পিউটারটিকে সফটওয়্যার এর মাধ্যমে কনফিগারেশন করে একসঙ্গে অনেক ডিভাইস কে যুক্ত হতে সাহায্য করে।

শেয়ার করুন

Leave a Comment

Your email address will not be published.