VPN কি? কিভাবে ভিপিএন কিভাবে কাজ করে? VPN কি কাজ করে?

VPN কি

ভিপিএন (VPN) এর পুরো নাম হলো Virtual Private Network ।

VPN ব্যবহার করে আমরা যেকোনো Block website খুলতে (open) পারি।


VPN এর ব্যবহার

আমরা অনেক সময় অন্য কোনো দেশের website open করতে চাই , যা আমাদের গভর্মেন্ট অথবা ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার (ISP) block করে রেখেছে।

এর ফলে আমরা ওই ইন্টারনেট কানেকশন ব্যবহার করে ওই website টি খুলতে পারি না।

এছাড়াও কোনো দেশের website যদি শুধুমাত্র ওই দেশের মানুষের জন্যই। সেসব website খুলতেও VPN এর ব্যবহার করা হয়ে থাকে।


ISP কিভাবে website ব্লক (Block) করে?

যখন আমরা কোনো website এ ভিজিট করি। তখন ওই request টি প্রথমে ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার (ISP) এর কাছে পৌঁছোয়।

ISP এর হলো আপনার ফোনে যে কোম্পানি ইন্টারনেট প্রোভাইড করে। যেমন বিভিন্ন SIM কোম্পানি অথবা ব্রডব্যান্ড (Broadband) কানেকশন (Connection) দেওয়া কোম্পানি গুলি হলো আপনার ISP ( Internet Service Provider)। অর্থাৎ যে কোম্পানি আপনাকে ইন্টারনেট ( internet) প্রদান করছে, ওরাই ISP।

আপনার ওয়েবসাইট (Website) ভিজিট (Visit) করার অনুরোধ (Request) টি ISP এর কাছে পৌঁছনোর পরে,

ISP ওই অনুরোধ (Request) টিকে ওই ওয়েবসাইটের (website) সার্ভার পর্যন্ত পৌঁছে দেয়। যার ফলে আমরা ওই website টি ভিজিট করতে পারি।

যদি কোনো ISP (ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার) চায়, তাহলে যেকোনো website কে ব্লক (block) করে দিতে পারে।

যদি ব্লক করে দেয়, তাহলে আপনি ওই ব্লক ( Block) হওয়া ওয়েবসাইট (website) টিকে খোলার (open) জন্য যখন ISP এর কাছে অনুরোধ (Request) পাঠান।

ওই অনুরোধ (Request) টি যখন ISP এর কাছে পৌঁছয়, ISP যেহেতু ব্লক (block) করে রেখেছে। তাই ISP ওই website টি ভিজিট (Visit) করার জন্য আর website এর সার্ভারে অনুরোধটি পাঠায় না ।

এবং আপনার ফোন , কম্পিউটার , ল্যাপটপে মেসেজ (message) দেখায় (show) করে , যে website টি ব্লক (Block) করা আছে।


VPN কিভাবে কাজ করে?

যদি কোনো website ISP (ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার) দারা ব্লক করা থাকে। তাহলে আইএসপি (ISP) ওই website টি ব্যবহার করতে বাধা দেয়।

বিভিন্ন সময় দেশের গভর্মেন্ট ISP কে বলে রাখে , ওই website টিকে ব্লক ( block) করতে বলে থাকে বিভিন্ন কারণে। ( কি কারণে ব্লক (Block) করা হয় সেটা নিয়ে আমি আলোচনা করলাম না আর। আশাকরি আপনি বুঝতে পারছেন)

কিন্তুু VPN ব্যবহার করে ওই ব্লক করা website এ ভিজিট (Visit) করতে চাইলে, অন্যান্য দেশে থাকা কোনো VPN সার্ভার এ যুক্ত হতে হবে।

যেহেতু, ISP কোম্পানিগুলি ভিপিএন (VPN) সার্ভার কে ব্লক করেনি , তাই সহজেই অন্য দেশে থাকা কোনো VPN সার্ভারের সঙ্গে যুক্ত হওয়া সম্ভব।

এরপর, আপনি যে website টি ভিজিট করার জন্য VPN সার্ভার কে request করবেন ।

ভিপিএন সার্ভার ওই ব্লক (Block) website ভিজিট (Visit) করবে , এবং ভিজিট করার পরে ডাটা গুলো আপনার ফোনে ট্রান্সফার করবে। তাই আপনি ডাটা গুলি দেখতে পাবেন।

এবং ISP বুঝতেও পারবে না। কারণ আপনি ডাটা ট্রান্সফার করছেন VPN সার্ভার থেকে।

যেহেতু VPN সার্ভার টি অন্য দেশে অবস্থিত তাই ঐখানের সরকার যদি ওই website টি ব্লক (Block) না করে থাকে। তাহলে VPN সার্ভার সহজেই ওই website টি ভিজিট করতে সক্ষম।


কিভাবে VPN ব্যবহার করবেন?

মোবাইল অথবা কম্পিউটার যেকোনো জায়গাতে ভিপিএন এর ব্যাবহার করতে পারবেন।

Mobile এ কিভাবে ভিপিএন ব্যবহার করবেন?

মোবাইল VPN ব্যবহার করতে গেলে, প্লেস্টোর (Playstore) থেকে যেকোনো একটি VPN অ্যাপ ডাউনলোড করেন।

এরপর ওই অ্যাপটিকে এক্টিভ (active) করুন। তারপর যেকোনো website ভিজিট করলে টা VPN এর মাধ্যমেই ভিজিট হবে।

এবং VPN ব্যবহার করতে না চাইলে অ্যাপটি খুলে ডিসকানেক্ট করতে পারেন।

Play store এ গিয়ে শুধু সার্চ করুন VPN লিখে। প্রচুর VPN আছে যেগুলো সহজেই ব্যাবহার করতে পারবেন।

এগুলি মধ্যে, যেকোনো একটি অ্যাপ কে ইনস্টল করে, কানেক্ট করার পরে ইন্টারনেটের মাধ্যমে যেকোনো ওয়েবসাইটে ভিসিট করলে তা VPN এর মাধ্যমে ব্যবহার করা হবে।

প্লেস্টোরে VPN মোবাইল

কম্পিউটার অথবা ল্যাপটপে VPN ব্যবহার করা সহজ উপায় হলো

গুগল ক্রমে (Chrome) এ VPN Extension লিখে সার্চ করুন।

এবং এখান থেকে অনেক VPN পাওয়া যায় যা add করে VPN ব্যবহার করতে পারবেন। নিচের ছবিটি দেখুন বুঝতে পারবেন।

VPN কিভাবে ইন্স্টল্ করবেন কম্পিউটার ল্যাপটপ
কম্পিউটার ল্যাপটপ VPN ব্যবহার করা
ক্রোম VPN ইনস্টল
VPN extension active


VPN সার্ভার কিভাবে বানানো হয়?

ভিপিএন এর জন্য VPS ব্যবহার করা হয়ে থাকে। VPS এর পুরো নাম হলো Virtual Private Server ।

VPS হলো একপ্রকার কম্পিউটার সার্ভার। যার মধ্যে CPU, RAM , স্টোরেজ সমস্তকিছু থাকে। এবং VPS টি নেটওয়ার্কের সঙ্গে যুক্ত থাকে।

VPS সার্ভার সরবরাহ (Provide) জন্য বিভিন্ন কোম্পানি থাকে বিভিন্ন দেশে। ওই কোম্পানিগুলি কম্পিউটারকে ভাড়ায় (rent) দেয় ।

যেগুলি কে আপনি ইন্টানেটের মাধ্যমে সেটআপ করতে পারবেন। লিনাক্স (Linux) অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করে সঠিকভাবে কনফিগার (Configure) করে, ওই VPS কে ভিপিএন এ রূপান্তরিত করা হয়।

যার ফলে ওই কম্পিউটার টি একটি নেটওয়ার্ক এর মত কাজ করবে। এবং অন্য কম্পিউটারের Request অনুযায়ী ডাটা লোড ( load) করে , user কে দেখবে।


VPN ব্যবহারের সাবধানতা:

কিছু কিছু ক্ষেত্রে VPN ব্যবহার করা উচিত নয় , সেগুলি সমন্ধে আলোচনা করবো।

  • ব্যাংকিংয়ের ক্ষেত্রে vpn ব্যবহার করা উচিত নয়। কারণ bank এতে পাসওয়ার্ড থেকে শুরু করে যা কিছুই লিখবেন তা vpn সার্ভারের মধ্যেই হবে। তাই আপনি আপনার মোবাইল নম্বর ও পাসওয়র্ড সবকিছুই vpn সার্ভার দেখে নেবে। তাই এগুলি থেকে সাবধানে থাকা উচিত।
  • কোনোরকমের গুরুত্বপূর্ণ information শেয়ার করবেন না। যা আপনি ছাড়া অন্য কারো দেখা উচিত নয়।
  • এটি ব্যবহার করে কোনোরকমের কোনো অসামাজিক কাজ করা উচিত নয়।

VPS ব্যবহার করে কোনো website ভিজিট করলে তা কি কেউ বুঝতে পারবে?

আপনার ISP বুঝতে পারবে না। ISP শুধু জানতে পারবে আপনি ওই VPS সার্ভারের সঙ্গে কানেক্ট হয়েছিলেন। তাই স্বাভাবিকভাবে ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার বুঝতে পারবে না।

কিন্তুু, ভিপিএন সার্ভার এর কাছে তথ্য আছে , আপনি কোন ওয়েবসাইটে visit করেছিলেন।

তাই যদি ওই ভিপিএন service provider যদি চায় তাহলে ওই তথ্য জরুরী কোনো পরিস্থিতিতে দেখাতে পারে। যদিও এসব ডাটা দেখায় না। কিন্তু কখনো কখনো যদি কোনো গভর্মেন্টের ওই ডাটা এর প্রয়োজন হয় জরুরী কোনো কারণের জন্য তাহলে দেখা সম্ভব।


VPN সার্ভার ব্যবহার করে কোনো ওয়েবসাইট খুললে তা কি দ্রুত হয় ?

না। দ্রুত হয়না। উল্টে কিছুটা স্লো হয়।

ধরুন আপনি Wikipedia ওয়েবসাইট টিকে VPN এর মাধ্যমে ব্যবহার করতে চাইছেন।

তাহলে প্রথমে আপনার রিকোয়েস্ট টি VPN server এ যাবে তারপর VPN সার্ভার থেকে রিকোয়েস্ট টি উইকিপেডিয়া তে যাবে এর ফলে কিছুটা দেরি হয়। তাই স্লো হবে বলতে পারেন।

VPN এর পরিবর্তে যদি সরাসরি ওয়েবসাইট টি খুলতেন তাহলে , সরাসরি request টি Wikipedia এর সার্ভারে পৌঁছাবে । যার ফলে কিছুটা তাড়াতাড়ি হয় VPN ছাড়া।


VPN এর কিছু প্রশ্ন ও উত্তর:

সহজ শব্ধতে VPN এর অর্থ কি ?

VPN হল একটি কম্পিউটার সার্ভার যা নেটওয়ার্কের মতো কাজ করে অর্থাৎ , যখন আপনার ডিভাইস VPN সার্ভারের সঙ্গে যুক্ত হন তখন আপনি কোনো ভিডিও , গান , সার্চ করা ইত্যাদি কাজগুলি করার জন্য যে Request পাঠান ওই VPN সার্ভার ওই request অনুযায়ী ভিডিও , গান , সার্চ করা তথ্যগুলি ইন্টারনেট থেকে নিয়ে আপনার ডিভাইসে ট্রান্সফার করে।
আরো সহজভাবে বলতে গেলে ,
VPN এর মাধ্যমে কোনো ওয়েবসাইট ভিজিট করলে, ওই ওয়েবসাইটে VPN সার্ভার ভিজিট করে সমস্ত তথ্য আপনার ফোন পাঠাবে।

ফোনে VPN ব্যবহার করা উচিত কি ?

যদি এমন কোনো ওয়েবসাইট যা আপনার নেটওয়ার্ক প্রোভাইডার ব্লক করে রেখেছে , ওই সব ওয়েবসাইটে ভিজিট করার প্রয়োজন হলে VPN ব্যবহার করতে পারেন।
এছাড়াও , যদি কোনো Public Wi-Fi এর ইন্টারনেট ব্যবহার করেন , ওই সময় VPN ব্যবহার করলে আপনার ফোনের security বজায় থাকবে।
এই সব কারণ না থাকলে ভিপিএন ব্যবহার না করাই ভালো।

কখন VPN ব্যবহার করা উচিত নয় ?

নেটব্যাংকিং , মোবাইল ব্যাঙ্কিং কিংবা কোনো গুরুত্বপূর্ণ ওয়েবসাইটে ভিজিট করার সময় (যেসব ওয়েবসাইটে আইডি পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করবেন ) ওই সব ওয়েবসাইটে ভিসিট করার সময় ভিপিএন ব্যবহার না করাই ভালো।
কারণ , ওই সব গুরুত্বপূর্ণ account এর আইডি পাসওয়ার্ড ভিপিএন সার্ভার এর কাছে চলে যাবে।


শেয়ার করুন

Leave a Comment

Your email address will not be published.