মোবাইলে নেটওয়ার্কের সমস্যা? জানুন উপায়গুলি

মোবাইলের নেটওয়ার্কের সমস্যা _ জানুন উপায়গুলি

আপনার ফোনে নেটওয়ার্ক সিগন্যাল খুবই কম? কিংবা সিগন্যাল প্রায়ই চলে যায়? তাহলে এই পোস্টটি পড়ুন আপনার সমস্ত সমস্যার সমাধান এই পোস্টটিতে পেয়ে যাবেন ।

মোবাইলে নেটওয়ার্ক না থাকলে কি করবেন?

১. Aeroplane Mode

ফোনে নেটওয়ার্ক না থাকলে Aeroplane mode চালু (ON) করে আবার বন্ধ (OFF) করে দিলে যদি ফোনের মধ্যে কোনো সমস্যার কারণে নেটওয়ার্ক সিগনালের সমস্যা থাকে তা ঠিক হয়ে যেতে পরে।

২. Restart

কিছু কিছু ফোন আছে, যেগুলিতে সিমকার্ড লাগানোর পর ফোনটি বন্ধ করে চালু করতে হয়। নাহলে সিমকার্ডকে ডিটেক্ট (Detect) করতে পারেনা।

রিস্টার্ট করলে ফোনটি নতুন করে চালু হয়। তাই মোবাইলে ততক্ষনাত নেটওয়ার্কের সিগন্যালের সমস্যা থাকলে ঠিক হয়ে যেতেও পারে।

৩. সিমকার্ড চালু করুন

ভুলবশতঃ যদি সিমকার্ড বন্ধ করে রেখে দিই তাহলে নেটওয়ার্কের কোনো সিগন্যাল দেখতে পাবেন না। তাই সিমকার্ড (Simcard) চালু আছে কিনা তা দেখে নেওয়া উচিত।

সিমকার্ড দেখার জন্য , sim card settings এ গিয়ে ON করা আছে কিনা দেখতে পাবেন।

৪. Preferred network type

প্রেফার্ড নেটওর্য়াক টাইপ (Preferred network type) এই অপশনে গিয়ে 2G, 3G, 4G এই অপশন গুলির মধ্যে যেকোনো একটি বেছে নিতে হবে।

অনেকসময় কোনো কোনো জায়গাতে 4G নেটওয়ার্ক নাও থাকতে পারে আবার কোথাও 3G নেটওয়ার্ক নাও থাকতে পারে। আবার কোনো কোনো জায়গায় 2G নেটওয়ার্ক নাও থাকতে পারে।

তাই যেসব জায়গায়, যে নেটওয়ার্কের সিগন্যাল ভালো পাওয়া যায় , ওই জায়গায় ওই সিগন্যাল ব্যবহার করা উচিত।

৫. APN settings

APN (Access Point Name) এই অপশনটি android মোবাইলের sim settings এর মধ্যেই দেখতে পাওয়া যায়। access point name অপশনটিকে রিসেট করতে পারেন , এরপর ফোনটি বন্ধ করে চালু করে দেখতে পারেন।

৬. নেটওয়ার্ক সার্চ

যদি কোনো কারণ বশত মোবাইলের নেটওয়ার্ক না আসে তাহলে, নেটওয়ার্ক ম্যানুয়াল ভাবে সার্চ করতে পারেন।

অথবা Select network automatically এই অপশনে ক্লিক করে রাখতে পারেন।

৭. নেটওয়ার্ক বুস্টার

নেটওয়ার্ক বুস্টার একধরনের ডিভাইস যা ব্যাবহার করে মোবাইলের সিগন্যালের সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে পারেন।

যদি আপনার ঘরের দেওয়াল অথবা কোনো বাধা যার ফলে নেটওয়ার্কের সিগন্যাল আপনার ঘরের ভেতর পর্যন্ত নেটওয়ার্ক না আসে , কিন্তূ ঘরের বাইরে যদি ভালো নেটওয়ার্ক সিগন্যাল থাকে তাহলে নেটওয়ার্ক বুস্টার ব্যবহার করলে বাইরের নেটওয়ার্ক সিগন্যাল টি ঘরের মধ্যে প্রবেশ করতে পারে নেটওয়ার্ক বুস্টারের মাধ্যমে।

কিন্তূ যদি আপনার আশেপাশে নেটওয়ার্ক না থাকে তাহলে Booster ডিভাইস কোনরকমের সাহায্য করতে পারবে না।

যদি আপনার Location এ নেটওয়ার্ক আসেই না তাহলে নেটওয়ার্ক বুস্টার ব্যবহার করে কোনো লাভ হবে না , নেটওয়ার্ক বুস্টার তখনই ব্যবহার করবেন যদি আপনার বাড়ির বাইরে ভালো নেটওয়ার্কের সিগন্যাল থাকা সত্ত্বেও বাড়ির ভেতরে নেটওয়ার্ক প্রবেশ করতে পারছে না তখনি এটি কাজে দেবে।

৮. পুনরায় সিম কার্ড লাগান

কখনো কখনো সিমকার্ড মোবাইলের মধ্যে ভালোভাবে না লাগানোর কারণে সিমকার্ড কাজ নাও করতে পারে।

এরজন্য মোবাইলের সিমকার্ড টি খুলে লাগাতে পারেন। যার ফলে যদি সিমকার্ড টি ভালোভাবে লাগানো না থাকে, তাহলে ভালো ভাবে লাগিয়ে নিন।

৯. নতুন সিমকার্ড পরিবর্তন করুন

কখনও কখনও কোনো সিমকার্ড খারাপ হয়ে যেতেও পারে অথবা ওই সিমকার্ডটি বন্ধ করা আছে কোম্পানি থেকে এরকমও হতে পারে , তাই নতুন কোনো সিমকার্ড লাগিয়ে দেখতে পারেন।

নতুন কোনো সিমকার্ড লাগালে আপনি বুঝতে পারবেন আসলে ওই সিমকার্ডের কোনো সমস্যা আছে কিনা।

১০. নতুন কোনো জায়গায় ফোনটি নিয়ে যান

অন্য কোনো জায়গাতে নিয়ে গিয়ে দেখতে পারেন মোবাইলের নেটওয়ার্ক সিগন্যাল আসছে কিনা, এছাড়াও মোবাইলের টাওয়ারের সামনে গিয়েও দেখতে পারেন ফোনের নেটওর্য়াক সঠিকভাবে আসছেকিনা।

এভাবে আপনি বুঝতে পারবেন সমস্যাটা আসলে কোথায় হচ্ছে।

১১. Reset

অনেকসময় দেখা গেছে ফোন reset করলে মোবাইলের সেটিংস নতুনের মতো হয়ে যায়। তাই শেষ সুযোগ হিসেবে রিসেট করতে পারেন। Reset করার জন্য android ফোনের settings এর about phone অপশনের ভেতরে factory reset অথবা erase all data এরকম কিছু অপসন দেখতে পাবেন। ওই অপশনে ক্লিক করেই Reset করতে পারবেন।

যদিও একটি কথা মাথায় রাখবেন reset করলে মোবাইলের স্টোরেজে থাকা ডাটাগুলি ডিলিট হয়ে যেতে পারে , যেমন ফোন নম্বর ও অন্যান্য ফাইল গুলি। তাই reset করার আগে ওই ডাটাগুলিকে ব্যাকআপ নিয়ে রাখতে পারেন। ব্যাকআপ নেওয়ার জন্য মেমোরিকার্ড ব্যবহার করতে পারেন। অথার্ৎ মোবাইলের স্টোরেজের মধ্যে যাকিছু গুরুত্বপূর্ণ ডাটা আছে ওই সব file কে মেমোরীকার্ডে কপি করে রাখতে পারেন সেই সঙ্গে contact নম্বর গুলিকেও।

১২. কাস্টমার কেয়ার

এই সমস্তকিছু করার পরে যদি ঠিক না হয়, আপনি বুঝতে পারবেন সমস্যাটি কোথায়। যদি আপনার মনে হয় ফোনের সমস্যার জন্য নেটওয়ার্ক ভালোভাবে আসছেনা তাহলে ফোনটি service Centre এ গিয়ে দেখতে পারেন।

যদি আপনার মনে হয় সিমকার্ড থেকে সমস্যাটি দেখা দিচ্ছে , অথবা মোবাইলের টাওয়ার আপনার জায়গা থেকে অনেক দূরে আছে তাহলে কিন্তু নেটওয়ার্কের সমস্যা দেখা দেবে , এই সমস্যা সমাধানের জন্য মোবাইলের কাস্টমার কেয়ার এর নম্বরে ফোন করে আপনার সমস্যার কথা জানাতে পারেন।

কিছু টিপস

যদি নেটওয়ার্ক না থাকে অথবা কম সিগন্যাল থাকে যার ফলে ভালোভাবে কথা বলা যায়না , এই সমস্যার সমাধানের জন্য Wi-Fi calling করতে পারেন।

  • Wi-Fi calling সমদ্ধে বিশদে জানুন

আর একটি টিপস হলো অন্য কোনো নাম্বারে call divert অথবা forward করতে পারেন , অর্থাৎ যে নম্বরে সিগন্যাল আসছে না ওই নাম্বারে কল এলে অন্য নম্বরে কল টি divert/ forward হয়ে যাবে। তখন অন্য ফোনে কল গুলিকে ধরতে পারবেন। call divert/forward করতে গেলে ফোনের সেটিংসে যান > call setting> call forwarding. এভাবে অন্য নম্বর ইনকামিং কল গুলিকে ফরওয়ার্ডিং করতে পারবেন।


কিভাবে আপনি আপনার নেটওয়ার্কে রিফ্রেশ করবেন?

ফোনটি বন্ধ করে পুনরায় চালু করে অথবা Airplane mode অপশনটি ON করে আবার OFF করলে আবার নেটওয়ার্ক চলে আসবে।
airplane mode সবথেকে ভালো কারণ মোবাইল বন্ধ ও চালু করতে হয়না।

আমার ঘরে মোবাইলের নেটওয়ার্ক পাওয়া যায়না, কি করবো?

হতে পারে আপনি যেখানে থাকেন ওইখানে নেটওয়ার্কের কাভারেজ নেই অথবা আপনার মোবাইলের সিগন্যাল রিসেপ্টর এর সমস্যা থাকতে পারে।

উপসংহার

নেটওয়ার্কের যদি সমস্যা দেখা দেয় তাহলে প্রথমে আপনাকে বুঝতে হবে ওই সমস্যাটি কিসের জন্য হচ্ছে , যদি আপনি যেখানে থাকেন ওই জায়গাতে কোনো নেটওয়ার্ক কাভারেজ নেই তাহলে এই সমস্যা সমাধানের জন্য অন্য কোনো কোম্পানির সিমকার্ড ব্যবহার করতে পারেন , যদি অন্য কোম্পানির নেটওয়ার্ক কাভারেজ আপনার জায়গাতে থাকে।

এছাড়া মোবাইলের ও সিমকার্ডের সমস্যা হলে উপরের টিপসগুলি চেষ্টা করে দেখতে পারেন।

শেয়ার করুন

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *